Homeআন্তর্জাতিকফুটবল এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক: পেট্রোডলারের কারিশমা (পর্ব ২)

ফুটবল এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক: পেট্রোডলারের কারিশমা (পর্ব ২)

গত পর্বে আমি আলোচনা করেছিলাম মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং সৌদি আরব কিভাবে বিভিন্ন ধরণের ক্রীড়াকে ব্যবহার করে জনগণকে স্পোর্টসওয়াশিং করে আসছে। আর সেদিক দিয়ে বিবেচনা করলে ফুটবলও রাজনৈতিক ও কূটনৈতিকভাবে তারা ব্যবহার করে আসছে। আজকের পর্বে আমি তুলে ধরবো কেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশের বেসরকারি যাত্রীবাহী বিমানসংস্থাগুলো ইউরোপীয় ঘরোয়া ফুটবল দলের স্পন্সর হওয়ার জন্য মরিয়া আর এখানে পেট্রডলারের কি কি কারিশমা আছে, বিশেষ করে কাতারের কথা চিন্তা করলে।

শুধু রাজনৈতিক না, ইউরোপীয় ফুটবল লিগের উপর মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলোর ব্যবসায়িক কারণেও আকর্ষণ রয়েছে। ইউরোপীয় ফুটবল লিগ গুলোর ব্যপক চাহিদা ও দর্শক থাকায় স্বাভাবিকভাবেই বিভিন্ন স্পনসরদের জন্য অনেক লোভনিয়। শুধুমাত্র টিমের জার্সিতে স্পনসরের লোগো বা ব্র্যান্ডিং বসিয়েই উঁচু সারির ক্লাবগুলো মিলিয়ন মিলয়ন পাউন্ড বা ইউরো আয় করে। আর লিগ থেকে টেলিভিশন সম্প্রচার চুক্তি ও ইভেন্ট স্পন্সরদের থেকে আয়ের কথা তো বাদই দিলাম। আরব আমিরাত ভিত্তিক বেসরকারি যাত্রিবাহী বিমান সংস্থা এমিরেটস (Emirates) এর কথাই ধরা যাক না।

চিত্র-১: ইউরোপের শীর্ষ লিগের ক্লাবগুলোর জার্সি স্পন্সর হিসেবে এমিরেটস।

বেসরকারি যাত্রিবাহী বিমান সংস্থার আধিপত্য 

এমিরেটস একাধারে ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগে আর্সেনাল, ফ্রান্সে লিগ অ্যাঁ এর অলিম্পিক লিও, স্পেনের লা লিগার ৩৫ বারের এবং উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ১৩ বারের রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন হওয়া দল রিয়াল মাদ্রিদ, ইতালির সিরি আ ১৯ বারের চ্যাম্পিয়ন এবং ৭ বার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা এসি মিলান ইত্যাদি দলের জার্সির বর্তমান স্পন্সর।[1] এর আগেও এমিরেটস ফ্রান্সের লিগ অ্যাঁ এর অন্যতম পরাশক্তি প্যারিস সেন্ট জার্মেই বা পিএসজির (২০১২-২০২০ টানা ৯ মৌসুম চ্যাম্পিয়ন) জার্সি স্পনসর ছিলো। সরেজমিনে দেখা গিয়েছে, এসব দলের জার্সিতে লিজেদের ব্র্যান্ডিং ব্যবহার করার জন্য ২০২০-২০২১ মৌসুমেই এমিরেটস্ কে ১৮২ মিলিয়ণ ডলার (বাংলাদেশি সাড়ে পনেরো হাজার কোটি টাকা) গুণতে হয়েছে।[2] কিন্তু এর বিপরীতে বৈশ্বিক বেসরকারি যাত্রিবাহী বিমানের আয়ের ৩৫ শতাংশেরও বেশি এমিরেটসের দখলে ছিলো। কেননা, করোনার প্রকপে যখন অন্যান্য বৈশ্বিক বেসরকারি যাত্রিবাহী বিমান সংস্থা আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছিলো, এমিরেটসের আয়ে তেমন ভাটা পড়ে নি বললেই চলে। সেই সাথে তারা আর্সেনালের স্টেডিয়ামের (এমিরেটস স্টেডিয়াম) নামের স্বত্তও ২০২৩-২০২৪ সালের জন্য নবায়ন করেছে।

চিত্র-২: ম্যানচেস্টার সিটির হোমভেনু ইতিহাদ স্টেডিয়ামের শুধু নামস্বত্তের জন্যই ইতিহাদকে প্রতিবছর ৬৭.৫ মিলিয়ন পাউন্ড গুণতে হয়।

এমিরেটসের পর আরব আমিরাতভিত্তিক ইতিহাদ এয়ারওয়েজ (Etihad) দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ফুটবল দলের জার্সি স্পন্সর করার দিকে। এরই মধ্যে তারা ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগের দল ম্যানচেস্টার সিটি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকারের দল নিউ ইয়র্ক সিটি আর অস্ট্রেলিয়ার দল মেলবোর্ন সিটির জার্সি স্পনসর। এই এক ম্যানচেস্টার সিটির জার্সি স্পন্সর আর স্টেডিয়ামের নামস্বত্তের জন্যই ২০০৯ সাল থেকে এখন অবধি প্রতি বছর ৬৭.৫ মিলিয়ন পাউন্ড (বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮ হাজার টাকা) গুণতে হয় ইতিহাদ কে।[3]

কাতারের পেট্রডলারের বাজিমাত

ইউরোপীয় ঘরোয়া ফুটবল দলের স্পনসর বা মালিকানা হিসবে কাতারও কিন্তু পিছিয়ে নেই। কাতারের ব্যবসায়ী এবং ধনকুবের নাসির আল-খেলাইফি ২০১১ সালে ফ্রান্সের লিগ অ্যাঁ এ নিজেদের হারানো ঐতিহ্য ফিরে পেতে মরিয়া প্যারিস সেন্ট জার্মেই বা পিএসজি ক্রয় করেন কাতার স্পোর্টস ইনভেস্টমেন্টের (QSI) এর নামে। তিনি ২০১১ সালের অক্টবরে আগামী ৫ বছরের মধ্যে ফ্রান্সের শীর্ষস্থানীয় দল এবং পরবর্তিতে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জেতার প্রতিশ্রুতি দেন। দেখা গিয়েছে, পেট্রোডলারের ব্যবহার করে তিনি ২০১২ সালের মধ্যেই পিএসজিকে ফ্রান্সের সবচেয়ে ধনী ও শক্তিশালী ফুটবল দলে রুপান্তরিত করেছিলেন; এক মৌসুমেই তিনি সুইডেনের কিংবদন্তি জালাতান ইব্রাহিমোভিচ, ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ডেভিড বেকহাম, ব্রাজিলের থিয়াগো সিলভা ইত্যাদির দলে ভিরিয়ে সাফল্যের দেখা পান, ২০১২-১৩ মৌসুমে দীর্ঘ ২১ বছর পর ফ্রান্সের শীর্ষস্থানীয় লিগ জেতে পিএসজি। ২০১২-১৩ মৌসুম থেকে ২০১৯-২০২০ মৌসুমে টানা ৮ বার লিগ অ্যাঁ এর চ্যাম্পিয়ন হয় তারা। যদিও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জয়ের স্বপ্ন অধরাই থেকে যায়, বিশেষ করে ২০১৯-২০ মৌসুমের ফাইনালে জার্মানির অন্যতম পরাশক্তি বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ১-০ ব্যবধানে হেরে।

চিত্র-৩: ২০১৭-২০১৮ মৌসুমে ট্রান্সফার ফির বিশ্বরেকর্ড গড়ে ব্রাজিলের তারকা ফুটবলার এবং স্ট্রাইকার নেইমারকে (ডানে) পিএসজিতে ভেড়ান নাসির আল-খেলাইফি (বামে)।

অথচ সেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যেই ২০১৭ সালে এক মৌসুমেই ৪০ মিলিয়ন ইউরোর বিশ্বরেকর্ড ট্রান্সফার ফি গরে নাহিয়ান আল-খেলাইফি ব্রাজিলের তারকা ফরোয়ার্ড নেইমার (২১ কোটি ইউরো), উরুগুয়ের স্ট্রাইকার এডিনসন কাভানি (৭ কোটি ইউরো) আর ফ্রান্সের প্রতিভাবান ফরোয়ার্ড ও ভবিষ্যৎ তারকা কিলিয়ান এম্বাপ্পেকে (১২ কোটি ইউরো) দলে ভিরিয়ে ইউরোপের ফুটবলে রীতিমতো হইচই ফেলে দেন তিনি।[4] এরকম রাজকীয় খরচ এর আগে কেউ করেনি, এমনকি রিয়েল মাদ্রিদের মতোন তারকাবহুল লস গ্যালেক্টিকোস (তারকার ছায়াপথ; Galaxy of Stars) করেছিলো কিনা সন্দেহ। কিন্তু এ থেকে তিনি ফুটবল দুনিয়াকে দুটি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। প্রথমত, কাতারের যথেষ্ট পরিমাণ বিত্ত আছে এবং সেই বিত্ত দিয়ে বিশ্বের মঞ্চে নিজের নাম উজ্জ্বল করতে বদ্ধপরিকর। দ্বিতীয়ত, অদূর ভবিষ্যতে পেট্রডলারই ইউরোপের বিভিন্ন ফুটবল লিগে সাফল্যের অলিখিত মন্ত্র হিসবে গণ্য হবে। সরেজমিনে দেখা গিয়েছে, কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করে ভালো ফুটবলার দিয়ে দল গড়েই সাফল্য পাওয়া ইউরোপীয় ফুটবলে অনেকটা প্রতিষ্ঠিত হয়ে গিয়েছে।

বিশেষ করে, ২০১৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ কর্তৃক অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর থেকেই কাতার মরিয়া হয়ে পড়ে নিজেদের শক্তি-সামর্থ্য জানান দেওয়ার জন্য।[5] সেই হিসেবে ইউরোপের মঞ্চে পিএসিজির মতোন ফ্রান্সের ঐতিহ্যবাহী ফুটবল ক্লাব একটি মোক্ষম উপায় হিসেবে আবির্ভূত হলো নিজেদের Soft Power বা অর্থনৈতিক শক্তি জানান দেওয়ার। তুরস্ক আর ইরানের সাথে ব্যবসায়িক সুসম্পর্ক থাকায় কাতার অর্থনৈতিকভাবে তেমন ক্ষতির সম্মুখিন ও হয়নি, যার ফলে নাহিয়ান আল-খেলাইফির মাধ্যমে কাতার তার অর্থনৈতিক শক্তির জানান দিলো গোটা ফুটবল দুনিয়াকে। আবার কাতার যেহেতু ২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক, একই সাথে গোটা দুনিয়াও বৈধতা দিবে যে কাতার আসলেই ২০২২ বিশ্বকাপের যোগ্য আয়োজক।

চিত্র-৪: ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপের জন্য কাতারের রাজধানী দোহায় নির্মিত অত্যাধুনিক ও নয়নাভিরাম আহমাদ বিন আলী স্টেডিয়াম।

কাতারভিত্তিক বেসরকারি যাত্রিবাহী বিমান সংস্থা কাতার এয়ারওয়েজ (Qatar Airways) ও কিন্তু ইউরোপীয় ফুটবল দলের জার্সি স্পন্সর হিসেবে বেশ সরব। ২০১৪ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত স্পেনের অন্যতম সেরা দল বার্সেলোনার জার্সি স্পন্সর ছিলো সেটি, যার জন্য আবার প্রতি বছর ৪৫ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি টাকার হিসেবে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা) গুণতে হতো। আবার ২০১৮ থেকে এখন অবধি ইতালির সিরি আ এর জনপ্রিয় দল এএস রোমার জার্সি স্পনসর রয়েছে কাতার এয়ারওয়েজ।[6]

হতে পারে ইউরোপীয় ফুটবলের নামীদামী দলের মালিকানা ও স্পনসরের মাধ্যমে বহিঃবিশ্বে নিজেদের অর্থনীতির জানান দিচ্ছে। কিন্তু সবচেয়ে কঠোর বাস্তবতা হচ্ছে এক কালের মোস্ট বিউটিফুল গেম (সবচেয়ে সুন্দর খেলা) এখন ব্যবসায়ের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। আগের মতো ইউরোপের নামীদামী ফুটবল ক্লাব যুব একাডেমি থেকে প্রতিভাবান খেলোয়ার তৈরি না করে সহজ রাস্তায় মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার, পাউণ্ড বা ইউরো জলে ঢেলে সাফল্যের জন্য অধিক আগ্রহী। এতে করে তাদের আর্থিক স্বচ্ছলতা বাড়ছে ঠিকই, অধিক মুনাফা আসছে জার্সি এবং টেলিভিশন সম্প্রচার স্বত্ত বিক্রি করে, কিন্তু দিনশেষে ফুটবলেরই অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে। আগে ইউরোপের ফুটবল লিগ গুলোতে গুরুত্ব পেতো একটি ক্লাব কিভাবে সুন্দর ফুটবল প্রদর্শনের মাধ্যমে সফল হতো। আর এখন তা হয়ে গিয়েছে একটি ক্লাব কতো আয় করছে প্রতিবছর এবং কেমন মুনাফা লাভ করছে। আর এরই মোক্ষম সুবিধা নিচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের পেট্রডলারের বদৌলতে ধনধান্য দেশগুলো, বিশেষ করে সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং কাতার।

[1] Emirates Bangladesh. 2021. Sponsorship Football | Sponsorship | Our communities | Emirates Bangladesh. [online] Available at: <https://www.emirates.com/bd/english/about-us/our-communities/sponsorship/football/> [Accessed 20 June 2021].

[2] Khan, N., 2021. Analysis: Gulf airlines’ obsession with sports sponsorship. [online] Arabian Business. Available at: <https://www.arabianbusiness.com/analysis-gulf-airlines-obsession-with-sports-sponsorship-576567.html> [Accessed 20 June 2021].

[3] Garcia, S., 2020. Report – Manchester City to keep Etihad Airlines Stadium and Kit Sponsorship. [online] Bitter and Blue. Available at: <https://bitterandblue.sbnation.com/2020/8/22/21397177/report-manchester-city-to-keep-etihad-airlines-stadium-and-kit-sponsorship> [Accessed 20 June 2021].

[4] ESPN. 2018. Most expensive transfers of all-time. [online] Available at: <https://www.espn.in/football/blog/soccer-transfers/3/post/2915603/most-expensive-transfers-of-all-time-neymar-mbappe-pogba-ronaldo-and-more> [Accessed 20 June 2021].

[5] BBC News. 2017. Qatar crisis: What you need to know. [online] Available at: <https://www.bbc.com/news/world-middle-east-40173757> [Accessed 20 June 2021].

[6] Russo, K., 2020. Sponsorship Look Back: AS Roma’s three-year sponsorship deal with Qatar Airways. [online] RUSSO LAW AND SOCCER. Available at: <https://kennethrusso.com/2020/01/24/sponsorship-look-back-as-romas-three-year-sponsorship-deal-with-qatar-airways/> [Accessed 20 June 2021].

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Read

Featured